দেশের খবর



লালমনিরহাটের হাট-বাজারে নিম্নমানের বিস্কুটে সয়লাব

Logo

ছবি: সময়বিডি.কম

লালমনিরহাটের হাট-বাজারে নিম্নমানের বিস্কুটে সয়লাব

আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট সংবাদদাতা 2018-05-06 10:34:42

লালমনিরহাট: লালমনিরহাটে বিভিন্ন হাট-বাজারে বিক্রি হচ্ছে ভেজাল ও নিম্নমানের বিস্কুট। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরী, অনুমোদনহীন ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এসব বিস্কুট দামে কম হওয়ায় দেদারছে কিনছেন লোকজন।

নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যাগ ভর্তিকরে রাস্তার পাশে খোলাবাজারে ১০০ থেকে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে এই বিস্কুট। এসব বিস্কুট উৎপাদনে ব্যবহৃত উপাদান নিম্নমানের, যা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

সরেজমিনে দেখা যায়, জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার ভুলুয়ারহাট এলাকায় প্রায় ২০টি ভাসমান খোলা বিস্কুটের দোকান। ওই সব দোকানে প্রতিদিন অন্তত ১০/১২ মণ বিস্কুট বিক্রি হচ্ছে। তা ছাড়া ঐ বাজারে “মেসার্স মা বাবার দোয়া এন্টারপ্রাইজ” নামে বিস্কুটের একটি আড়ৎ রয়েছে। প্রতিদিন শতেক মণ বিস্কুট বিক্রি হচ্ছে ওই আড়ৎ থেকে।

আড়তের তিন মালিক শহিদুল ইসলাম, লাবলু মিয়া ও  জহির ইসলাম। তারা জানান, সারা দেশের ব্যবসায়ীদের মতো তারাও ঢাকা থেকে এসব বিস্কুট নিয়ে এসে এলাকায় বিক্রি করেন। এর বাইরে তারা অন্য কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি।

আড়ৎ থেকে ব্যবসায়ীরা বিস্কুট পাইকারি দরে কিনে বিভিন্ন হাট-বাজারে খুচরা বিক্রি করেন। একই চিত্র জেলার অন্য ৫ উপজেলায়।

এসব বিস্কুট কবে উৎপাদন করা হয়েছে, মেয়াদ কবে শেষ হবে, তা বস্তার গায়ে উল্লেখ নেই। বিএসটিআই এর অনুমোদনও নেই। বিশেষ করে চরাঞ্চলের লোকজন কোন কিছু যাচাই বাছাই না করে খোলা বাজারের এসব বিস্কুট কিনছেন।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ জানান, আমরা নিয়মিত ভোজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করছি। অনুমোদনহীন পণ্য বিক্রির সুযোগ নেই বলে তিনি জানান। তারপরও যদি কেউ অনুমোদনহীন পণ্য বিক্রি করে থাকেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। 

মে ০৬, ২০১৮

Reply


Write a comment

Sign up